খুঁজুন। বিয়ে করুন। ভালবাসুন। আজীবন।

Landing page down arrow

কিভাবে আপনি জীবনসঙ্গী খুঁজবেন?

  • tick markরেজিস্টার করুন নিজের বা পরিচিতজনের জন্য
  • tick markআপনার সকল তথ্য দিন
  • tick markসবগুলো ঘর ভালোভাবে পূরণ করুন
  • tick markকার্ড বা বিকাশে পে করুন
  • tick markপাত্র/পাত্রী খুঁজুন
  • tick markসম্পূর্ণ বায়োডাটা দেখার অনুরোধ করুন
  • tick markযোগাযোগের অনুরোধ করুন
  • tick markমেসেজ পাঠান
  • tick markদেখা করুন এবং বিয়ের সিদ্ধান্ত নিন

আমাদের সেবাসমূহ

Our-Services-icon-1-logo

সপ্তাহে ৭ দিন গ্রাহক সেবা

আমরা সকাল ১০ টা থেকে বিকাল ৬ টা পর্যন্ত গ্রাহক সেবা দিয়ে থাকি। আমাদের সাথে আপনারা ইমেইল, ফোন অথবা ফেসবুক মেসেঞ্জারের মাধ্যমে যোগাযোগ করতে পারেন। আমরা চেষ্টা করি সকল সমস্যার সহজ এবং দ্রুত সমাধান করতে।

Our-Services-icon-2-logo

বিশেষ পরামর্শ

আমরা গ্রাহকদের আরও সুন্দরভাবে কিভাবে প্রোফাইলটি উপস্থাপন করতে পারে সে ব্যাপারে পরামর্শ দিয়ে থাকি। প্রিমিয়াম গ্রাহকদের চাহিদা সাপেক্ষে তাদের পছন্দের পাত্র বা পাত্রী খুঁজতে সাহায্য করে থাকি।

Our-Services-icon-3-logo

ফেসবুক পেইজের মাধ্যমে সহযোগীতা

আমাদের ফেসবুক পেইজের মাধ্যমে গ্রাহক আমাদের সাথে সরাসরি যোগাযোগ করতে পারবেন। যেকোনো ধরণের সমস্যা অথবা যেকোনো ধরনের প্রশ্নের উত্তর আমরা দিয়ে থাকি। এছাড়াও আমরা ফেসবুক পেইজে কিছু পাত্র বা পাত্রীর নিজের সম্পর্কে কিছু কথা পোস্ট করে থাকি।

Our-Services-icon-4-logo

গোপনীয়তা ও বিশ্বস্ততার নিশ্চয়তা

আপনার অনুমতি ছাড়া ছবি, আসল নাম ও পূর্ণ প্রোফাইল কেউ দেখতে পারবে না। দুই ধাপে অনুমতি দেয়ার পরে গ্রাহক আপনার যোগাযোগের তথ্য পাবে। আমরা প্রত্যেকের মোবাইল নম্বর ভেরিফাই করি। আপনার অভিযোগ বা সন্দেহজনক তথ্য পেলে নিয়ম অনুযায়ী পদক্ষেপ নেই।

সফল বিয়ের গল্প

আপনার প্ল্যান নির্বাচন করুন

সুবিধাসমূহ

মেয়াদ
প্রযোজ্য নয়
শর্ট প্রোফাইল দেখুন
Tick icon
বায়োডাটার অনুরোধ গ্রহণ
Tick icon
যোগাযোগের অনুরোধ গ্রহণ
Tick icon
যোগাযোগের অনুরোধ প্রেরণ
Cross icon
বায়োডাটার অনুরোধ প্রেরণ
Cross icon
বায়োডাটা ডাউনলোড
Cross icon
সংবাদপত্রের বিজ্ঞাপন
Cross icon
বিশেষজ্ঞ সেবা (চাহিদা সাপেক্ষে)
Cross icon
সুপারিশ (চাহিদা সাপেক্ষে)
Cross icon

সুবিধাসমূহ

মেয়াদ
২ মাস
শর্ট প্রোফাইল দেখুন
Tick icon
বায়োডাটার অনুরোধ গ্রহণ
Tick icon
যোগাযোগের অনুরোধ গ্রহণ
Tick icon
যোগাযোগের অনুরোধ প্রেরণ
২৫
বায়োডাটার অনুরোধ প্রেরণ
ইচ্ছেমতো
বায়োডাটা ডাউনলোড
Tick icon
সংবাদপত্রের বিজ্ঞাপন
Tick icon
বিশেষজ্ঞ সেবা (চাহিদা সাপেক্ষে)
Tick icon
সুপারিশ (চাহিদা সাপেক্ষে)
Tick icon

সুবিধাসমূহ

মেয়াদ
৬ মাস
শর্ট প্রোফাইল দেখুন
Tick icon
বায়োডাটার অনুরোধ গ্রহণ
Tick icon
যোগাযোগের অনুরোধ গ্রহণ
Tick icon
যোগাযোগের অনুরোধ প্রেরণ
৬০
বায়োডাটার অনুরোধ প্রেরণ
ইচ্ছেমতো
বায়োডাটা ডাউনলোড
Tick icon
সংবাদপত্রের বিজ্ঞাপন
Tick icon
বিশেষজ্ঞ সেবা (চাহিদা সাপেক্ষে)
Tick icon
সুপারিশ (চাহিদা সাপেক্ষে)
Tick icon

সুবিধাসমূহ

মেয়াদ
৯ মাস
শর্ট প্রোফাইল দেখুন
Tick icon
বায়োডাটার অনুরোধ গ্রহণ
Tick icon
যোগাযোগের অনুরোধ গ্রহণ
Tick icon
যোগাযোগের অনুরোধ প্রেরণ
১০০
বায়োডাটার অনুরোধ প্রেরণ
ইচ্ছেমতো
বায়োডাটা ডাউনলোড
Tick icon
সংবাদপত্রের বিজ্ঞাপন
Tick icon
বিশেষজ্ঞ সেবা (চাহিদা সাপেক্ষে)
Tick icon
সুপারিশ (চাহিদা সাপেক্ষে)
Tick icon
* অফার ১০ অক্টোবর ২০২১ পর্যন্ত চলবে

ব্লগ

ফ্রিতেই হতে পারে বিয়ে

blog-image-1
বিয়েটা ডট কমে রেজিস্ট্রেশন এর পরে যদি কেউ আপনাকে অনুরোধ পাঠায় আর আপনার সাথে তার সব পছন্দ-অপছন্দ মিলে যায় তাহলে হতে পারে বিয়ে ফ্রিতেই।   বিয়েটা ডট কমে রেজিস্ট্রেশন করতে কোন ফি দিতে হয়না। রেজিস্ট্রেশন করতে শুধু একটি ভ্যালিড ই-মেইল আইডি লাগে। আর রেজিস্ট্রেশেন এর সময় আপনার  মোবাইল নাম্বারে  যাবে একটি ভেরিফিকেশন কোড, ভেরিফিকেশন কোড বসিয়ে সঠিক তথ্য দিয়ে প্রোফাইল কমপ্লিট করলেই হতে পারে বিয়ে একদম ফ্রিতেই।    এরকম অনেক হচ্ছে, কোন ফি ছাড়াই বিয়ে করছেন অনেকে। আজ আমরা এরকম একজনের কথা শুনাব।    সাতক্ষীরার মেয়ে রিমু, সে অনার্স থার্ড ইয়ারে পড়ছে। বিয়ে করা দরকার আর তাই বিয়েটা’তে রেজিস্ট্রেশন করলেন। সে সুন্দরী, লম্বা।   রেজিস্ট্রেশন করার কয়েকদিনের মধ্যে বিভিন্ন জায়াগা থেকে অনুরোধ আসা শুরু হয়। কয়েকজনের সাথে কথা বলাও শুরু হয়। আর এই কথা বলার জন্য প্রথমে যাকে পছন্দ হয়েছে তার পুরো বায়ো-ডাটা দেখার অনুরোধ গ্রহণ করতে হয়, এরপরে আবার ঐ পাত্র এর পক্ষ থেকে যোগাযোগের অনুরোধ আসে। যোগাযোগের অনুরোধ গ্রহণ করলে একে অপরের ফোন নাম্বার, ঠিকানা পাওয়া যায়। ফ্রি ইউজার হিসাবে থাকলেও যোগাযোগের অনুরোধ গ্রহণ করা যায়। অর্থাৎ ফ্রি ইউজার হয়েও কথা বলা, এসএমএস পাঠানোর সুযোগ রয়েছে বিয়েটা ডট কমে।   সবশেষে রিমু নরসিংদির  এক ছেলের যোগাযোগের অনুরোধ গ্রহণ করে। সেই ছেলে একজন সফটওয়ার ইঞ্জিনার। ছেলেটি ঢাকায় থাকে। নাম ইমরান ফাহাদ। প্রাইভেট ফার্মে জব করে। সে একজন সুন্দরী ও লম্বা মেয়ে খুঁজছিল।  ইমরান ফাহাদের সাথে রিমুর প্রায় ২ মাস বিভিন্ন বিষয়ে কথাবার্তা হয়। অবশেষে তারা ঢাকায় রিমুর এক আত্বীয় এর বাসায় দেখা করে। রিমুকে প্রথম দেখাতেই ইমরান ফাহাদের পছন্দ হয়। তারপরে রিমু নিজে তার এক বোনের সাথে ইমরানের অফিসে দেখা করে। এভাবে কিছুদিন থাকার পরে রিমু গ্রামের বাড়ি ফিরে যায়। আর এর কয়েকদিন পরে একে-অপরের আত্বীয় স্বজনের উপস্থিতিতে বিয়ে অনুষ্ঠিত হয়।   ইমরান ফাহাদ বিয়েটা ডট কম থেকে দুইটি প্ল্যান কিনেই সফল হয়েছিলেন। আর রিমু কোন প্ল্যান না কিনেই অর্থাৎ ফ্রিতেই বিয়েটা ডট কম থেকে পেয়ে গেলেন মনের মত পাত্র।   আসলে বিয়েটা ডট কম থেকে প্রতিদিন এইরকম বিয়ে অনুষ্ঠিত হচ্ছে যার সব খবর আমাদের কাছে নেই। ২০১৫ এর ডিসেম্বার থেকে আজ ১১ই সেপ্টেম্বর-২০২১ পর্যন্ত বিয়েটা ডট কমে ৮৪,১৩৯ জন গ্রাহক একাউন্ট খুলেছে। আর এখন  বিয়েটাতে ২৫,৫২৯টি প্রোফাইল সচল রয়েছে। তাই আপনি আস্থা রাখতে পারেন বিয়েটা ডট কমের উপর।প্রয়োজন শুধু সঠিক তথ্য দেওয়া আর কিছু সময় দেওয়া। প্রতিদিন প্রোফাইলে  সময় দিলে আপনার প্রোফাইলটি বিয়েটা ডট কমের সাইটের প্রথম পেজে বা প্রথম দিকে থাকবে। যার ফলে সবাই দেখতে পারবে। আর কারো যদি পছন্দ হয় তাহলে আপনাকে অনুরোধ পাঠাতে পারেন। আর আপনি সহজেই পেয়ে যেতে পারেন নিজের পছন্দমত মনের মানুষকে।  বিয়েটা‘তে বিয়ের আগে বা পরে প্ল্যান আপগ্রেড করা ব্যতিত কোন পেমেন্ট করতে হয়না। অর্থাৎ বিয়ের পরে বিয়েটা ডট কমে কোন পেমেন্ট বা উপহার দিতে হয়না। বরং বিয়েটা ডট কম থেকেই বিবাহিতদেরকে উপহার দেওয়া হয়েছে। তাই বিয়ের পরে অবশ্যই ফিডব্যাকে উল্লেখ করবেন যে বিয়েটা’র মাধ্যমে বিয়ে হয়েছে। এতটুক কৃতজ্ঞতা বিয়েটা ডট কম আশা করতেই পারে। আশা করি ফিডব্যাকে উল্লেখ করবেন বিয়ের খবর। 

সিদ্ধান্ত নিতে হবে আপনাকে

blog-image-2
বিয়ের ব্যাপারে খুব গুরুত্বপূর্ণ একটি বিষয় হল সিদ্ধান্ত নেওয়া। প্রায় সব কিছু মিলে যাওয়ার পরেও অনেকেই সিদ্ধান্ত নিতে পারেন না। যার ফলে বিয়ে বিলম্ব হয়। সিদ্ধান্ত নিতে হবে। অদূর ভবিষ্যতের কথা আমরা কেউ জানিনা। এটা জানা সম্ভব না। ভাল ধারণা নিয়ে এগুতে হবে। মহান আল্লাহর কাছে ভাল কিছু আশা করতে হবে। সতর্ক ও সচেতন হতে হবে জীবনের প্রতিটি ক্ষেত্রে পুরাপুরি প্রস্তুতি নিয়ে বা পছন্দের সবকিছুই মিলে যাবে এটা আশা করলে বিয়ে বিলম্ব হবে। বিয়েটা ডট কমের ইউজারদের মধ্যে একজনের অভিজ্ঞতার কথা থেকে কিছু কথা শেয়ার করছি- রাজশাহীর মুনিয়া নামের একটি মেয়ে বিয়েটা ডট কমে রেজিস্ট্রেশন করেছেন বিয়ের জন্য। সে দেখতে সুন্দরী, অনার্স পড়ছে। তার বড় বোনের বিয়ে হয়ে গেছে। দুই ভাই বিবাহিত। বাবা নেই, মা আছেন। মা প্রায় অসুস্থ থাকেন। ভাইয়েরা নিজেদেরকে নিয়ে ব্যস্ত থাকেন। মা চাইলেও মুনিয়ার জন্য ভাল ছেলে খুঁজে দেওয়ার মত অবস্থা নেই।  মুনিয়া পড়াশুনায় ব্যস্ত থাকলেও নিজে অনুভব করে যে তার বিয়ে করা দরকার। তার বান্ধবীদের বিয়ে হয়ে যাচ্ছে, কারও সন্তানও হয়ে গেছে। মুনিয়া বিয়েটা ডট কমে বিয়ের জন্য রেজিস্ট্রেশন করার পরে অনেকেই তাকে অনুরোধ পাঠানো শুরু করলেন। কয়েকজনের কমিনিকেশন রিকোয়েস্ট গ্রহণ করলেন। কুমিল্লার একটি ছেলে, সফটওয়ার ইঞ্জিনার, ঢাকায় থাকেন। তার সাথে মুনিয়ার কথা বার্তা চলছিল। ভাল বোঝাপড়া হচ্ছিল। এরমধ্যে তানিয়ার প্রোফাইলে আরেকটি অনুরোধ আসলো এক সরকারি চাকুরিজীবীর পক্ষ থেকে। সে ঢাকায় সরকারি চাকুরি করে আর বাড়ি রাজশাহী। মুনিয়া এবার তার সাথে কথা বলা শুরু করে দিল আর কুমিল্লার ছেলেটাকে এড়িয়ে যেতে লাগলো।  সরকারি চাকরিজীবী ছেলেটার সাথে মুনিয়ার সম্পর্ক অনেক গভীর হতে লাগলো। যদিও তার বয়স মুনিয়ার তুলনায় একটু বেশি। কিন্তু মুনিয়া চিন্তা করলো সরকারি চাকরির কথা। মুনিয়া প্রায় সিদ্ধান্ত নিয়ে ফেললো বিয়ে করবে, ছেলেটাও রাজি। তারা একে অপরকে দেখার সিদ্ধান্ত নিল। এর মধ্যে মুনিয়ার প্রোফাইলে আরেক ছেলের অনুরোধ আসলো, যে দেখতে ঐ সরকারি চাকরিজীবীর চাইতে সুন্দর ও বয়স কম।  মুনিয়া এবার সরকারি চাকরিজীবীকে বাদ দিয়ে সুন্দর ছেলেটার সাথে কথা বলা শুরু করলো।  আর এভাবে বেশ কিছুদিন কেটে গেল। মুনিয়া ভুলে গেল প্রথম সেই সফটওয়ার ইঞ্জিনারের কথা, সরকারি চাকুরিজীবী লোকের কথা। কিন্তু এই সুন্দর ছেলেটা সুন্দর করে কথা বলে, আর বিয়ের কথা বললে নিজেকে প্রতিষ্ঠিত করে তারপরে বিয়ে করবে বলে মুনিয়াকে জানিয়ে দেয়।  অন্যদিকে সেই সফটওয়ার ইঞ্জিনার, সরকারি চাকরিজীবী কেউ আর মুনিয়ার ফোন রিসিভ করে না।  কারণ তারা হয়তো বিয়ের সিদ্ধান্ত নিয়ে ফেলেছে অন্য কোথাও।  তাই বিয়ের ব্যাপারে যে আপনার প্রতি আগ্রহী হয় এবং তার সততা, পেশা, রুচিশীলতা ইত্যাদি যদি পছন্দ হয় তাহলে আর দেরি করা ঠিক নয়।  এই ব্যাপারে ইসলামের নির্দেশনা- রাসূল (সা.) বলেছেন, ‘যখন তোমাদের নিকট কোনো পাত্র বিয়ের প্রস্তাব দেয়, যার দ্বীনদারী ও চরিত্র তোমাদের যদি পছন্দ হয়, তাহলে তার সঙ্গে বিয়ে সম্পন্ন করো। অন্যথা জমিনে বড় বিপদ দেখা দেবে এবং সুদূরপ্রসারী বিপর্যয়ের সৃষ্টি হবে।’ (সুনানে তিরমিজি)   বিয়ের ক্ষেত্রে সিদ্ধান্ত নিতে হবে। নিজের পছন্দের মধ্যে কোনটাকে প্রাধান্য দিবেন আর কোনটাকে ছাড় দিবেন তাও সিদ্ধান্ত নিয়ে রাখতে হবে। অর্থাৎ সৌন্দর্যকে প্রাধান্য দিলে সম্পদ বা ক্যরিয়ারের ব্যাপারে ছাড় দিতে হবে। আবার সম্পদ বা ক্যারিয়ার চাইলে বয়স, সুন্দর ইত্যাদি বিষয়কে ছাড় দেওয়ার মনমানসিকতা থাকতে হবে।   মুনিয়ার মত অনেকেই সিদ্ধান্ত নিতে না পারার কারণে কিন্তু পিছিয়ে যাচ্ছে। আরেকটি ব্যাপার কারও সাথে বিয়ের কথা চলাকালীন যদি আরেক জনের সাথে বিয়ে নিয়ে কথা বলা শুরু করেন, তাহলে কিন্তু সিদ্ধান্ত নেওয়া আরো কঠিন হবে। এরকম না করাই উচিৎ। আর বিয়ের সিদ্ধান্ত নেওয়ার ক্ষেত্রে একে-অপরের পছন্দ হলে দেরী করতে নেই। রাসুল (সা.) বলেন, “তিন কাজে দেরি করবে না। সময় হয়ে গেলে নামাজ আদায়ে, জানাজা এসে গেলে জানাজার নামাজ পড়তে এবং কুফু মিলে গেলে বিবাহে বিলম্ব করবে না।”  (তিরমিজি শরিফ)  (কুফু হল একে অপরের দ্বীনদারিতা, বংশ, অর্থ-বিত্ত, পছন্দ-অপছন্দ ইত্যাদি মিলে যাওয়া বা সমকক্ষ হওয়া ইত্যাদি।)