বাংলাদেশে ম্যারেজ / ম্যাট্রিমনি সাইটের প্রয়োজনীয়তা ও ভবিষ্যৎ

ম্যারেজ বা বিয়ে হচ্ছে এমন একটি বিষয় যা আমাদের জীবনের এক অপরিহার্য বিষয় হয়ে দাঁড়িয়েছে। পশ্চিমা দেশগুলোর চাইতে আমাদের এই উপমহাদেশে বিয়ে অনেক জটিল একটি বিষয়। এখানে বিয়ের সাথে জড়িত থাকে দুইটি পরিবার ছাড়াও কিছু তৃতীয় পক্ষ যারা মধ্যস্থতা করে পাত্র এবং পাত্রীর মাঝে বিয়ে ঠিক করে দেয়।

এখন ডিজিটাল যুগ, সুতরাং এই বিষয়টিকে সহজতর করার জন্যই ম্যাট্রিমনি সাইট বা ম্যারেজ সাইটের উদ্ভব। প্রায় পঁচিশ বছর আগে এরকম ম্যারেজ সাইটের যাত্রা শুরু হয় এবং ধীরে ধীরে জনপ্রিয়তা পেতে শুরু করে। ম্যারেজ সাইট হচ্ছে এমন একটি ওয়েবসাইট যা শুধুমাত্র বিয়ে সংক্রান্ত কাজ করে থাকে। এখনকার ম্যারেজ সাইট বিয়ে থেকে শুরু করে বিয়ের সাথে সম্পৃক্ত সকল কাজ করে থাকে। দিন দিন এর জনপ্রিয়তা বেড়েই চলছে এবং ২০১৩ সালে একটি জরিপে পাওয়া গিয়েছে যে, “অনলাইন ম্যাট্রিমনি বিজনেস ২০১৭ সালের মধ্যে ১৫০০ কোটি রুপি বিজনেসে পরিণত হতে পারে।”(উৎস)

ম্যাট্রিমনি সাইটের প্রয়োজনীয়তা

ম্যাট্রিমনি বা ম্যারেজ ওয়েবসাইট ব্যবহার করা অনেক সহজ এবং আপনি আপনার পছন্দের সাথে মিলে যায় এরকম হাজার হাজার সম্ভাব্য পাত্র বা পাত্রীর বায়োডাটা দেখতে পারছেন, এখানে আপনার কোন তৃতীয় কোন পক্ষের জন্য অপেক্ষা করতে হচ্ছে না। ম্যারেজ ওয়েবসাইটে ঘটকদের তুলনায় অনেক বেশি বিয়ের জন্য আগ্রহী পাত্র বা পাত্রীর প্রোফাইল বা বায়োডাটা দেখতে পারবেন। ম্যারেজ সাইটে আপনি বাসার বাইরে থেকেও যেকোনো সময় দেখে নিতে পারবেন কারা আপনার প্রোফাইল দেখতে চায় এবং সিদ্ধান্ত নিতে পারবেন যে কার সাথে আপনি যোগাযোগ করতে চান। এখানে সম্পূর্ণ আপনার পছন্দকে গুরুত্ব দেয়া হচ্ছে। যেগুলো প্রোফাইল দেখানো হয় সবই আপনার পছন্দের উপর নির্ভর করে।

ম্যাট্রিমনি সাইটের প্রয়োজনীয়তা

কিছু কিছু ম্যারেজ সাইট আবার বিয়ের সাথে সম্পৃক্ত কাজও করে থাকে। এতে করে পাত্র/পাত্রীর কিছুটা দুশ্চিন্তা দুর হয়ে যায়। এখানে আরেকটি সুবিধা হল রেজিস্ট্রেশন সম্পূর্ণ ফ্রী এবং আপনি যাচাই বাছাই করে তারপর পেমেন্ট করে পাত্র বা পাত্রীর সাথে যোগাযোগ করবেন, যেখানে ঘটক কিছু টাকা অগ্রিম নেয়ার পরে পাত্র বা পাত্রীর ছবি দেখায়।

এখন আমরা বাস করছি এমন এক যুগে যেখানে সবাই সবকিছু দ্রুত করতে চায়। যদি সবদিক চিন্তা করে দেখি তবে ম্যারেজ সাইটের সুবিধা অনেক এবং খুব কম সময়ের মধ্যেই একজন মনের মানুষকে খুঁজে পাওয়া যায়। এই ওয়েবসাইট বিয়ে নিয়ে একটা আলাদা যে চাপ থাকে তাও অনেকটা কমিয়ে দেয়। তাই বলা যায়, এর প্রয়োজনীয়তা অনেক।

ম্যারেজ/ম্যাট্রিমনি সাইটের ভবিষ্যৎ

বিয়ে অনেক জটিল একটি বিষয় বলে আমাদের এই উপমহাদেশে ধরা হয়। অনলাইনে পরিচয় এবং ভালো লাগলেও বিয়ে বিষয়টি অনেকের কাছে খটকা লাগে। অনেকেই এখনও অনলাইনে বিশ্বাস স্থাপন করতে পারে নি। তারা এখনও মনে করে অনলাইন মানেই ধোঁকা আর প্ররোচনা। ভারত এই বিষয়ে অনেকটা এগিয়ে গিয়েছে। তবে বাংলাদেশে এই ধারণা দূর হতে কিছু সময় লাগবে। আস্তে আস্তে যখন মানুষ এই বিষয়টি অনেক স্বাভাবিকভাবে নিবে তখন দেখা যাবে অধিকাংশ মানুষের বিয়ে এই ম্যারেজ সাইট বা ম্যাট্রিমনি সাইটের মাধ্যমে হবে।

ম্যাট্রিমনি সাইটের প্রয়োজনীয়তা

আমাদের আরো ব্লগ পোস্ট পড়তে, বিয়েটার সাথেই থাকুন।

Share on

মন্তব্য করুন

আপনার ই-মেইল এ্যাড্রেস প্রকাশিত হবে না। * চিহ্নিত বিষয়গুলো আবশ্যক।

This site uses Akismet to reduce spam. Learn how your comment data is processed.