বিভিন্ন দেশে বিয়েতে কিছু অদ্ভুত রীতি নীতি

বিয়ে হচ্ছে এমন একটি অনুষ্ঠান যার মধ্য দিয়ে দুটি মানুষ একই বন্ধনে আবদ্ধ হয়।  

বিয়ের ঐতিহ্য, রীতিনীতি, জাতিগত আদর্শ ইত্যাদি দেশ ও ধর্ম অনুসারে  বিভিন্ন দেশে বিভিন্ন রকমের হয়ে থাকে।

 

বেশিরভাগ বিয়ে অনুষ্ঠানের শুরুতে হবু বর-কনেকে আংটি পড়ানোর পদ্ধতি চালু রয়েছে।

দু’ই পরিবারের প্রধানের উপস্থিতির মাধ্যমেই অনুষ্ঠিত হয়ে থাকে বিয়ের অনুষ্ঠান।

একেক দেশে বিয়ের রীতিনীতি, পোশাক-আশাক তাদের ঐতিহ্য অনুযায়ীই হয়ে থাকে।

 

চীন, জাপান, কোরিয়া, ফিলিপাইন, সুইডেন, মঙ্গোলিয়া, ফিজি, পোল্যান্ড, স্কটল্যান্ড, অস্ট্রেলিয়া, জার্মানী, দক্ষিন আফ্রিকা, গুয়েতেমালা- দেশ সমূহের বিয়েতে যেসব অদ্ভুত কান্ড ঘটে থাকে সেগুলো জেনে নেই।

 

  • চীনঃ 

    আমাদের দেশে বরের হাতে যখন কনেকে সমর্পণ করা হয় তখন কনে এবং তার পরিবার কাঁদতে থাকে। কিন্তু চীনের তুইজা গোষ্ঠীর মেয়েদের এই কাজটা বিয়ের আগের ঠিক এক মাস ধরে করতে হয়। এই একমাস প্রতিদিন নিয়ম করে কনেরা এক ঘণ্টা করে কাঁদে। শুধু তাই নয় বিয়ের দিন যতই ঘনিয়ে আসে কান্নার দলের সদস্য সংখ্যা ততই বাড়তে থাকে। বিয়ের যখন ২০ দিন বাকি থাকে তখন মেয়ের সঙ্গে এসে যোগ দেয় তার মা। বিয়ের যখন ১০ দিন বাকি থাকে তখন এসে যোগ দেয় কনের নানী। আর শেষের বাকি কয়েকটা দিন পরিবারের সবাই এই কান্নার আসরে যোগ দেয়। এটিই তাদের চিরাচরিত ঐতিহ্য।

Chinese Marriage Customs

  • জাপান :

    জাপানে বিয়ের সময় বর ও বউ তিনটি কাপের পানীয় থেকে তিনবার চুমুক দেন। এরপর তাঁদের বাবা-মা একইভাবে সেই কাপগুলোতে চুমুক দেন। জাপানিদের বিশ্বাস, এতে পরিবারের মধ্যে বন্ধন পাকাপোক্ত হয়।

 

  • কোরিয়া :

    কোরিয়ায় বিয়ের সময় বর তাঁর শাশুড়িকে একজোড়া পুতুল হাঁস উপহার দিয়ে থাকেন। এই উপহারটি দিয়ে বর বউয়ের প্রতি তাঁর উদ্দেশ্য এবং আনুগত্য প্রকাশ করেন।

 

  • ফিলিপাইন :

    দীর্ঘ, শান্তিময় ও ছন্দময় জীবনের উদ্দেশ্যে ফিলিপাইনে বিয়ের দিন বর ও বউ একই সঙ্গে দু’টি কবুতর আকাশে ছেড়ে দেন। তাঁরা মনে করেন, কবুতরের সঙ্গে সঙ্গে তাঁদের জীবনের দুঃখ-কষ্টও দূর হয়ে যাবে।

Philipino Marriage Customs

  • সুইডেন :

    ইউরোপের দেশ সুইডেনের বিয়ের রীতিটাও বেশ অদ্ভুত। বর যদি বাথরুমে যাওয়ার জন্য বিয়ের টেবিল থেকে উঠে যায় তবে উপস্থিত পুরুষ মেহমানরা এসে নববধূকে চুমু দেওয়ার  সুযোগ পায়। তেমনিভাবে নববধু যদি বাথরুমে যায় তবে উপস্থিত নারীরা এসে বরকে চুমু খেয়ে যাবে।

 

  • মঙ্গোলিয়াঃ

    চীনের মঙ্গোলিয়ান গোষ্ঠীর কারো বিয়ের তারিখ ঠিক কর তে হলে বর-বধূকে একটি ছুরি নিয়ে একসাথে একটি মুরগির ছানা মারতে হবে। এরপর দেখা হয়, সেই মুরগির ছানার কলিজার রঙ কেমন। যদি তা টাটকা এবং শুদ্ধ মনে না হয়, তবে বিয়ে আর হবে না। অপেক্ষা করতে হবে এভাবে যতদিন না দুজন মিলে একটি মুরগির ছানা মারতে পারে যার কলিজা দেখতে লাগবে টাটকা। তবেই না বিয়ের তারিখ আর বিয়ে।

 

  • ফিজিঃ

    ফিজির পুরুষদের বিয়ে করতে হলে তিমি মাছের দাঁত সংগ্রহ করতে হবে। কোনো মেয়ের বাবাকে বিয়ের প্রস্তাব দিতে হলে ছেলের কাছে অবশ্যই তিমি মাছের দাঁত থাকতে হয়। সমুদ্রের তলদেশে বসবাস করা তিমি মাছের দাঁত সংগ্রহ করাটা অনেকটাই অসম্ভব কাজ। তাই বাধ্য হয়ে অনেককেই ব্ল্যাক মার্কেটে ধরনা দিতে হয়।

 

  • পোল্যান্ডঃ

    পোল্যান্ডে বিয়ের পার্টিতে বউয়ের সঙ্গে নাচার জন্য অতিথিদের মোটা অঙ্কের টাকা দিতে হয়। সেই টাকা জমিয়ে নবদম্পতির হানিমুনের জন্য খরচ করা হয়।

 

  • স্কটল্যান্ডঃ

    স্কটল্যান্ডে বর ও বউ বিয়ের আগে ঘরের বাইরে বসে থাকে আর তাদের ওপর ছাই, পালক, ময়দা ও গুড় মেশানো অ্যালকোহল ঢেলে দেয়া হয়। আর এই কাজটি তাঁদের পরিবার ও বন্ধুরা স্বাচ্ছন্দ্যের সঙ্গেই করে থাকেন।

 

  • অস্ট্রেলিয়াঃ

    অস্ট্রেলিয়ায় বিয়ের সময় অতিথিরা বর ও বউকে রঙবে রঙের পাথর ও মার্বেল উপহার দিয়ে থাকেন। এমনকি বিয়ের সময় তাঁরা অতিথিদের একটি বড় কাচের বাটিতে পাথরগুলো রাখতে বলেন, যা পরবর্তীতে নতুন দম্পতিরা তাঁদের ঘরের একটি বিশেষ জায়গায় রেখে দেন। যাতে তাঁরা সব সময় অনুভব করেন তাঁদের পরিবার ও বন্ধুদের সাহায্য এবং দোয়ার কথা।

Australian Marriage Customs

  • জার্মানিঃ

    জার্মানিতে বিয়ের আগের দিন রাতে বর-বউয়ের পরিবার ও বন্ধুরা তাদের ঘরের বাইরে কাচের জিনিস ছুড়ে ফেলেন। নতুন দম্পতিরা সেই ভাঙা কাচের টুকরাগুলো ঝাড়ু দিয়ে নতুন ঘরে প্রবেশ করেন। বিয়েতে জার্মানির আরো একটি মজার রীতি হলো, বিয়ের পর নতুন দম্পতি সবার সামনে একটি কাঠের টুকরোকে একসঙ্গে কেটে দেখাবেন। এটি দিয়ে তাঁরা প্রমাণ করেন দুজন সমানভাবে কাজ ভাগাভাগি করে নেবেন এবং তাদের মধ্যে বোঝাপাড়া অনেক ভালো।

 

  • দক্ষিণ আফ্রিকা :

    নতুন দম্পতির ঘরে বর এবং বউ উভয়ের বাবা-মা তাঁদের বাসা থেকে আগুন নিয়ে আসেন। সেই আগুন দিয়ে তাঁরা তাঁদের নতুন ঘরের ফায়ারপ্লেসের আগুন ধরান। ছোটবেলা থেকে তারা যে আগুনের আঁচে অভ্যস্ত, সে রকম আগুন দিয়েই তারা তাদের নতুন জীবন শুরু করে।

South African Marriage Customs

  • গুয়েতেমালাঃ 

    গুয়েতেমালায় বরের মা নতুন দম্পতিকে স্বাগত জানাতে বিয়ের পার্টিতে একটি সাদা রঙের ঘণ্টা ভাঙেন, যা নতুন দম্পতির সুখময় জীবনের উদ্দেশ্যে করা হয়ে থাকে।

সুপ্রিয় ভাই ও বোনেরা উপরে উল্লেখিত তথ্যসমূহ কেবল ইন্টানেট থেকে সংগৃহীত তবে এগুলোই উল্লেখিত দেশ সমুহের একমাত্র নিয়ম নীতি নয়। কারণ ধর্ম, গোত্র, বর্ণ  বিশেষে একই দেশে বিভিন্ন নিয়ম হয়ে থাকে। শুধু মাত্র বিয়ে সম্পর্কে কিছু মজার তথ্য উপস্থাপন করা হল।

তবে আমাদের দেশেও বিভিন্ন ধর্মের লোকেরা বিভিন্ন এলাকায় কিছু মজার কাজ করে থাকে যা অন্যান্য দেশের সাথে মিলেও যেতে পারে। জেনে নিন ইসলামে বিবাহ পরবর্তী জীবন কিংবা স্বামী স্ত্রীর ভালবাসা সম্পর্কে কি বলে। এই ব্লগ থেক আরও জানতে পারবেন নবীজি (সাঃ) উনার স্ত্রীদের প্রতি তাঁর ভালবাসা কিভাবে প্রকাশ করতেন। 

Share on

মন্তব্য করুন

আপনার ই-মেইল এ্যাড্রেস প্রকাশিত হবে না। * চিহ্নিত বিষয়গুলো আবশ্যক।

This site uses Akismet to reduce spam. Learn how your comment data is processed.